শুক্রবার ২২ সেপ্টেম্বর ২০১৭ || সময়- ৮:৪৯ am
নতুন বই ২১ বছরে লেখা রাশেদ রউফের পদ্য-সাংবাদিকতা

ইনফরমেশন ওয়াল্ড সাহিত্য শিল্প ও সংস্কৃতি  নিউজ ডেক্স
চট্টগ্রাম:----: ১৯৯৫ থেকে ২০১৫। ২১ বছর। সপ্তাহে একটি করে অন্ত্যমিল লিখেছেন কবি-সাংবাদিক রাশেদ রউফ। যাকে তিনি আখ্যা দিয়েছেন ‘পদ্য-সাংবাদিকতা’। দৈনিক আজাদীতে প্রকাশিত অন্ত্যমিলগুলো নিয়ে ৫৯২ পৃষ্ঠার বই প্রকাশ করেছে আদিগন্ত প্রকাশন। প্রকাশক মোশতাক রায়হান। প্রচ্ছদ করেছেন ধ্রুব এষ।

কিশোরকাব্য, প্রবন্ধ, কাব্যগ্রন্থ, ছড়াগ্রন্থ, কিশোর গল্পগ্রন্থ মিলে তিন ডজনের বেশি বইয়ের জনক রাশেদ রউফ বাংলানিউজকে বলেন, অন্ত্যমিলসমগ্রে কেবল সেই সব ছড়া-কলাম স্থান পেয়েছে যেগুলো দৈনিক আজাদীর আজমিশালীতে প্রকাশিত হয়েছে। তার মধ্যে থেকেও কিছু ছড়া বাদ দেওয়া হয়েছে, আর কিছু ছড়া সংগ্রহে ছিল না বলে অন্তর্ভুক্ত করা যায়নি। তবু আমি মনে করি, অন্ত্যমিলগুলোর মাধ্যমে আমার সময়কে আমি ধরে রাখতে পেরেছি। ‘অন্ত্যমিলসমগ্র’ আমার চলমান সময়ের চালচিত্র। জীবন-পথের নিবিড় পর্যবেক্ষণ।

খ্যাতিমান কবি ময়ুখ চৌধুরী ‘অন্ত্যমিলসমগ্র ১’র ভূমিকায় লিখেছেন, ‘অন্ত্যমিলে’র বিষয়বস্তু দৈনন্দিন জীবনের উদ্ভট সমস্যাবলি,  আর্থসামাজিক কার্যাবলির অসঙ্গতি ইত্যাদি। রাশেদ রউফ বিষয়গুলো সংগ্রহ করেছেন সাংবাদিকের মতো, পরিবেশন করেছেন শিল্পীর মতন। কর্তাব্যক্তিদের চোখে নাগরিক জীবনের তিক্ত অভিজ্ঞতাগুলোকে এমনভাবে তুলে ধরেছেন, কৌতুকরসের রসায়নে তাতে জ্বলুনি আরও বেড়ে যায়।

প্রশ্ন জাগতে পারে ‘অন্ত্যমিল’ কীব কবিতা না ছড়া? এর সহজ উত্তর কবিতা থেকে ছড়া, আর ছড়া থেকে কবিতায় যাওয়ার করিডর হলো অন্ত্যমিল। এরপরও যদি কোনো বেরসিক বলেন যে, ‘এ বই না বেরোলেও চলতো’; তাহলে বলবো ‘চলতো না’। অন্তত ‘অন্ত্যমিল’ বানানে য-ফলা কেন এলো, বই না বেরোলে তো তা চোখে পড়তো না। কী বলেন!’

৭০০ টাকা দামের বইটিতে অলংকরণের কাজটি করেছেন শিল্পী উত্তম সেন, ধ্রুব এষ, আজিজুর রহমান, নাসিম আহমেদ, মনিরুজ্জামান পলাশ, মামুন হোসাইন, গৌতম ঘোষ ও নাজমুন্নাহার। সমগ্রটি উৎসর্গ করা হয়েছে শিক্ষাবিদ-প্রাবন্ধিক ড. সিরাজুল ইসলাম চৌধুরীকে।
তথ্য সূত্র :-বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম