শনিবার ১৮ নভেম্বর ২০১৭ || সময়- ৩:১৪ pm
গার্মেন্টস বন্ধ করে দেওয়ার হুমকি বিজিএমইএ’র

ইনফরমেশন ওয়াল্ড  অর্থনীতি নিউজ ডেক্স 
চট্টগ্রাম:-- --- গার্মেন্টস কারখানাকে কেন্দ্র করে সরকারি-বেসরকারি হয়রানি বন্ধ না হলে আগামী এক বছর পর দেশের সব গার্মেন্টস বন্ধ করে দেওয়ার হুমকি দিয়েছে বাংলাদেশের পোশাক প্রস্তুতকারী ও রফতানিকারকদের সংগঠন বিজিএমইএ।
শনিবার (১২ নভেম্বর) বিকেলে গণমাধ্যম কর্মীদের পেশাগত দক্ষতা বৃদ্ধির লক্ষ্যে বিজিএমইএ ভবনে বিজিএমইএ এবং বিইউএফটি ফেলোশিপ প্রদান অনুষ্ঠানে সংগঠনটির সভাপতি সিদ্দিকুর রহমান এ হুমকি দেন। 
তিনি বলেন, নানা প্রতিকূলতায় গার্মেন্টস চালাতে হচ্ছে মালিকদের। কিন্তু তারপরও সরকারি-বেসরকারি নানা হয়রানি চলছে। যার ফলে কারখানা টিকিয়ে রাখা কষ্টকর হচ্ছে। এসব হয়রানি বন্ধ না করা হলে আগামী এক বছর পর বাধ্য হয়ে আমরা দেশের সব গার্মেন্টস কারখানা বন্ধ করে দিবো।
তিনি আরও বলেন, আমাদের সঙ্গে কোনো আলোচনা ছাড়াই বিভিন্ন সরকারি-বেসরকারি বিভাগে সিদ্ধান্ত নেওয়া হচ্ছে। যার ভোগান্তি পোহাতে হচ্ছে আমাদেরই। কোনো আলোচনা না করেই চট্টগ্রাম বন্দরে ধর্মঘট ডাকা হলো। লাগাতার ধর্মঘটে আমাদের প্রচুর ক্ষতি হয়েছে। কিন্তু তার দায় কি কেউ নিয়েছে! তার ক্ষতিপূরণতো সরকার দিচ্ছে না। ব্যাংক ঋণের উচ্চ সুদ, গ্যাস সমস্যাসহ নানা সমস্যাতো রয়েছেই। 
তাছাড়া করপোরেট ট্যাক্স ১০ শতাংশ থেকে বাড়িয়ে ৩৫ শতাংশ করায় ব্যবসায়ীদের নানা সমস্যার সম্মুখিন হতে হচ্ছে বলেও মন্তব্য করেন সিদ্দিকুর রহমান। তিনি করপোরেট ট্যাক্স আগের মতো ১০ শতাংশে ফিরিয়ে আনারও দাবি জানান।
অন্যদিকে দেশের পোশাক শিল্প বন্ধ হয়ে গেলে ৫০ বিলিয়ন ডলার রফতানি আয় অর্জনের লক্ষ্যে পৌঁছানো যাবে না বলে জানিয়েছেন বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ। 
তিনি বলেন, ২০২১ সালে রফতানির যে ৫০ বিলিয়ন ডলারের স্বপ্ন দেখা হচ্ছে তা পোশাক শিল্প ছাড়া সম্ভব না। দেশের মোট রফতানির ৮১ শতাংশই আসে পোশাক খাত থেকে। পোশাক শিল্প ছাড়া এ ৫০ বিলিয়ন ডলার রফতানি আয় অর্জন করা কিছুতেই সম্ভব না। আমরা পোশাক শিল্পের সমস্যা নিরসনের জন্য চেষ্টা করছি। আশা করছি অতি দ্রুত এ শিল্পের সমস্যা নিরসন করা সম্ভব হবে।
তথ্য সূত্র :-বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম