বৃহস্পতিবার ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৭ || সময়- ৫:৪২ am
১৬ নভেম্বর পর্যটকদের জন্য উন্মুক্ত হচ্ছে স্বর্ণ মন্দির

ইনফরমেশন ওয়াল্ড বেড়ানো নিউজ ডেক্স
চট্টগ্রাম:----বান্দরবানের বুদ্ধ ধর্মীয় স্থাপনা ও অন্যতম দর্শনীয় স্থান বুদ্ধ ধাতু জাদি (স্বর্ণমন্দির) ভ্রমণে নিষেধাজ্ঞা জারির ৯ মাস পর দর্শনার্থীদের জন্য উন্মুক্ত করে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে জাদি কর্তৃপক্ষ।
রোববার (১৩ নভেম্বর) রাতে শহরের রাজগুরু ক্যাং এ বৌদ্ধ ধর্মাবলম্বীদের অন্যতম ধর্মীয় উৎসব কঠিন চীবর দান উৎসবে এ ঘোষণা দেন বুদ্ধ ধাতু জাদির প্রতিষ্ঠাতা ও ধর্মীয় গুরু উ প ঞা জোত থেরো (উচহ্লা ভান্তে)।
দানোৎসবে আয়োজিত ধর্মীয় আলোচনায় ধর্মীয় গুরু উ প ঞা মহা থেরো (উচহ্লা ভান্তে) বলেন, দেশের অন্যতম জনপ্রিয় পর্যটন নগরী হিসেবে পরিচিতি লাভ করেছে বান্দরবান। একই সঙ্গে আকর্ষণীয়, দর্শনীয় ও পবিত্র স্থান হিসেবে স্বর্ণ মন্দির দেশ বিদেশে সমাদ্রিত। চলতি বছরের প্রথমদিকে এ জাদিতে কিছু বিচ্ছিন্ন ঘটনার পর পর্যটকদের ভ্রমণে নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হয়েছিল। বর্তমানে পর্যটকদের সুবিধার্থে পরিবেশ পরিস্থিতি বিবেচনা করে আবার সকলের জন্য উন্মুক্ত করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। আগামী ১৬ নভেম্বর থেকে পর্যটকদের জন্য উন্মুক্ত করা হবে স্বর্ণ মন্দির।
তবে ধর্মীয় স্থান হিসেবে এর পবিত্রতা রক্ষা করা সবার দায়িত্ব। ধর্মীয় স্থানের পবিত্রতা নষ্ট হয় এমন কোন কাজ থেকে বিরত থাকার জন্য সবার প্রতি অনুরোধ জানান তিনি।
জাদি পরিচালনা কমিটির সদস্য শিবু নাথ জানান, প্রশাসনের অনুরোধে মন্দির ও আশপাশের এলাকায় পর্যাপ্ত নিরাপত্তা ব্যবস্থার আশ্বাসে কর্তৃপক্ষ আরোপিত নিষেধাজ্ঞা তুলে নেওয়ার সিদ্ধান্ত নেয়।
চলতি বছরের ১৪ ফেব্রুয়ারি থেকে পূজারি ছাড়া অন্যান্য দর্শনার্থীদের প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা জারি করেছিল জাদি কর্তৃপক্ষ।
বান্দরবন শহরের বালাঘাটা এলাকায় ২০০০ সালে দক্ষিণ-পূর্ব এশীয় ধাঁচে বার্মার স্থাপত্যবিদের তত্ত্বাবধানে নির্মিত হয় এ স্থাপনা। দেশের সর্বাপেক্ষা বৃহৎ এ বৌদ্ধ মন্দিরে রক্ষিত রয়েছে বাংলাদেশের দ্বিতীয় বৃহত্তম বুদ্ধমূর্তি।
তথ্য সূত্র :-বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম