বৃহস্পতিবার ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৭ || সময়- ৩:৩৭ am
অপেশাদার বিপাশা বসু

ইনফরমেশন ওয়াল্ড বিনোদন নিউজ ডেক্স
চট্টগ্রাম:----অপেশাদারের মতো কাজ করেলেন বিপাশা বসু। ইন্ডিয়া-পাকিস্তান ফ্যাশন শো-এর শো স্টপার হিসেবে যুক্তরাজ্যে হাজির হয়েছিলেন বলিউডের এই অভিনেত্রী। সেখানে গিয়ে অনুষ্ঠান শুরুর কয়েক ঘণ্টা আগে না-কি বেঁকে বসেছিলেন তিনি।
ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেসে প্রকাশিত এক প্রতিবেদনে জানা যায়, শো শুরুর আগে বিপাশা তার ঘর থেকে বের হচ্ছিলেন না, এমনকি কারো সঙ্গে কথাও বলছিলেন না। যখন তার ম্যানেজার সানা কাপুর বিষয়টি নিয়ন্ত্রণে আনার চেষ্টা করতে যান তখন তাকে গালাগাল করে ঘর থেকে বের করে দেন। এখানেই শেষ নয়, ফ্যাশন শো’র আয়োজক গুরবানি কৌরকেও পমান করেছেন তিনি।
এ প্রসঙ্গে শো’র দায়িত্বে থাকা স্কাউট রোনিতা শর্মা রেখি বলেন, ‘ভারতে থাকার সময়েই সানা আমাদের জানিয়েছিলেন বিপাশা তার স্বামীকে সঙ্গে নিয়ে আসতে চান এবং পাঁচ রাত বেশি থাকতে চান। আমরা সেই অনুযায়ী রুম বুক করি। কিন্তু বাড়তি সময়ের জন্য একই হোটেলে রুম খালি না থাকায় আমরা অন্য একটি হোটেলে রুম পাই। সেটিও একটি পাঁচ তারকা হোটেল। যার প্রতি রাতের ভাড়া ৬শ’ পাউন্ড।’
তিনি আরও বলেন, “লন্ডনে পৌঁছানোর কিছুক্ষণ পরই আমরা তাকে দুটি লোকাল সিম কার্ডও দেই। কিন্তু বলতে গেলে তিনি সবার সামনে আমার মুখের ওপর তা ছুঁড়ে দেন। কারণ ওই সিমে মাত্র পাঁচ পাউন্ড রিচার্জ করা ছিলো। এ কারণে আমি তার কাছে ক্ষমা চেয়েছি। কিন্তু বিপাশা হোটেলে পৌঁছানোর পর পরিস্থিতি আরও খারাপ হয়।’
‘জিসম’খ্যাত এই তারকা অভিযোগ করে জানান, অতিরিক্ত পাঁচ দিনের জন্য যে হোটেলে রুম বুকিং দেওয়া হয়েছে সেটি না-কি অনেক ছোট।  রোনিতা আরও জানান, ‘আমরা যদি রুম না পাল্টে দেই তাহলে তিনি আমাদের শো করবেন না। পরিস্থিতি অনেকটা মাথায় বন্দুক ঠেকানোর মতো হয়ে দাঁড়ায়। এরপর আমি হোটেলের ম্যানেজারের সঙ্গে কথা বলে এক হাজার পাউন্ডের রুম বুক করি। কিন্তু সে সময় আমার কাছে মাত্র এক হাজার পাউন্ড ছিলো এবং মায়ের থেকে আরও দুই হাজার পাউন্ড নিয়ে কোনোভাবে অতিরিক্ত তিন দিনের রুম বুকিং করি।’
বিপাশা বসুকিন্তু এ ঘটনার কয়েক ঘণ্টা পর কোনো প্রকার নোটিশ ছাড়াই স্বামী করণকে নিয়ে বেরিয়ে পড়েন বিপাশা। এরপর লন্ডনের ব্যবসায়ী সানি সুরানি তাকে বিমানবন্দরে পৌঁছে দেন। তিনি বলেন, ‘আমি যখন তার সঙ্গে যোগাযোগ করি এটি অনেক কষ্টদায়ক একটি পরিস্থিতি ছিলো। বিপাশার ম্যানেজার সানার জন্য আমি থাকা ও খাওয়ার ব্যবস্থা করি এবং তাকে পরবর্তী ফ্লাইটে মুম্বাই পাঠানোর ব্যবস্থা করি। সবকিছুর জন্য আয়োজকদের অনেক ক্ষতির মুখে পড়তে হয়েছে। কারণ ভ্রমণ খরচ বাদে বিপাশাকে সাড়ে সাত হাজার পাউন্ড দেওয়া হয়েছে। বিপাশা এটিকে ‘হানিমুন মানি’ হিসেবে নিলেও আমরা বিষয়টি নিয়ে শেষ পর্যন্ত লড়াই করে যাবো। আমরা ভিসা ও ইমিগ্রেশন সেন্টারে আবেদন করবো তিনি যেন ভবিষ্যতে যুক্তরাজ্যে কাজ করতে না পারেন।’
এ প্রসঙ্গে বিপাশা তার টুইটারে লিখেছেন, ‘১৫ বছর আপনি অপেশাদারভাবে কোনো ব্যবসায় টিকে থাকতে পারবেন না। আপনি টিকে রয়েছেন কারণ আপনি স্বচ্ছ রয়েছেন এবং আপনার আত্মসম্মান আছে।’
তিনি আরও লিখেছেন, ‘শুনলাম একজন নারী আমার কাজের নৈতিকতা নিয়ে বাজে কথা বলেছেন এবং কিছু মিডিয়া তাকে সাহায্য করছে।’
তথ্য সূত্র :-বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম