শনিবার ১৮ নভেম্বর ২০১৭ || সময়- ৩:১৮ pm
আইএমও’র ২০১৮-১৯ সালের কাউন্সিল নির্বাচনে ‘বি’ ক্যাটাগরিতে পুনঃনির্বাচনে বাংলাদেশের প্রার্থিতা দাখিল

ইনফরমেশন ওয়াল্ড জাতীয় নিউজ ডেক্স
 চট্টগ্রাম:----ঢাকা, ৩০ জুলাই,২০১৭ (বাসস) : ইন্টারন্যাশনাল মেরিটাইম অর্গানাইজেশনের (আইএমও) ২০১৮-১৯ সালের কাউন্সিল নির্বাচনে ‘বি’ ক্যাটাগরিতে পুনঃনির্বাচনের জন্য বাংলাদেশ এবারও প্রার্থিতা দাখিল করেছে। আইএমও’র ৩০তম নিয়মিত অধিবেশনে এই কাউন্সিল সদস্য নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে।
যুক্তরাজ্যের লন্ডনে আইএমও’র প্রধান কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত ১১৮তম কাউন্সিল অধিবেশনে এ প্রার্থিতা দাখিল করা হয়। ২৪ জুলাই থেকে ২৮ জুলাই পর্যন্ত এ অধিবেশন চলে।
নৌপরিবহন মন্ত্রী শাজাহান খান আন্তর্জাতিক নৌ-সংস্থার (আইএমও) ১১৮তম কাউন্সিল অধিবেশনে পাঁচ সদস্যের বাংলাদেশ প্রতিনিধি দলের নেতৃত্ব দেন।
আজ রোববার নৌপরিবহন মন্ত্রণালয়ের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ কথা জানানো হয়।
এতে বলা হয়, এবারের কাউন্সিল অধিবেশনে মেরিটাইম সেফটি, প্রশিক্ষণ, নৌ-বাণিজ্য, পরিবেশ সংরক্ষণ ও বিধি-বিধান প্রভৃতি বিষয়ে আইএমও’র বিভিন্ন সভায় গৃহিত সুপারিশের ওপর বিস্তারিত আলোচনা শেষে বিভিন্ন সিদ্ধান্ত গৃহিত হয়েছে।
বাংলাদেশসহ উন্নয়নশীল দেশসমূহের স্বার্থ সংরক্ষণের জন্য এ বছরের কাউন্সিল অধিবেশনে বাংলাদেশের অংশগ্রহণ ছিল অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ একথা উল্লেখ করে বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়,কাউন্সিল সভায় নির্বাচনী ক্যাম্পেইনের পাশাপাশি নৌ-স্বার্থ সংশ্লিষ্ট বিষয়ে আলোচনা করা হয়। আইএমও’র ৩০তম নিয়মিত অধিবেশনে কাউন্সিল সদস্য নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। চলতি বছরের ২৭ নভেম্বর থেকে ৬ ডিসেম্বর পর্যন্ত ১০ দিনব্যাপী এ অধিবেশন হওয়ার কথা রয়েছে।
পাঁচ সদস্যের বাংলাদেশ প্রতিনিধি দলের অন্যান্য সদস্যরা হলেন: নৌপরিবহন অধিদপ্তরের মহাপরিচালক কমডোর সৈয়দ আরিফুল ইসলাম, নৌপরিবহন মন্ত্রণালয়ের যুগ্মসচিব এম এম তারিকুল ইসলাম, নৌপরিবহন অধিদপ্তরের চীফ নটিক্যাল সার্ভেয়ার ক্যাপ্টেন কে এম জসীমউদ্দিন সরকার এবং ইঞ্জিনিয়ার ও শিপ সার্ভেয়ার এস এম নাজমুল হক।
শাজাহান খান আইএমও’র ১১৮ তম কাউন্সিল অধিবেশনে যোগদান শেষে রোববার সকালে দেশে ফিরেছেন।
বাংলাদেশ ১৯৭৬ সালে জাতিসংঘের বিশেষায়িত সংস্থা আইএমও’র সদস্যপদ লাভ করে। বর্তমানে বিশ্বের মোট ১৭২ টি দেশ আইএমও’র সদস্য। তবে স্থায়ী সদস্য রয়েছে ১০ টি। ‘বি’ ক্যাটাগরির সদস্য সংখ্যাও ১০টি। এছাড়াও ‘সি’ ক্যাটাগরির ২০টি দেশ রয়েছে। বাংলাদেশ ২০০১ সন থেকে ‘বি’ ক্যাটাগরির সদস্য হিসেবে কাজ করছে।